জয়পুরহাটে চায়ের দোকানদারকে কুপিয়ে হত্যা

জয়পুরহাটে চায়ের দোকানদারকে কুপিয়ে হত্যা

প্রকাশিত: ১৩-১২-২০১৯, সময়: ০০:৪৬ |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক, জয়পুরহাট : জয়পুরহাট সদর উপজেলার ধলাহার ইউনিয়নের ভানাই কুসলিয়া গ্রামে বেড়া দেওয়াকে কেন্দ্র করে ধারালো বটি দিয়ে এক চায়ের দোকানদারকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় গুরুতর আহত আরও ৩ জন জয়পুরহাট সদর হাসপাতালে ও বগুড়ায় চিকিৎসাধীন রয়েছে। নিহত এনামুল হক (৫০) ভানাই কুসলিয়া গ্রামের গ্রামের মৃত আব্দুল গণির ছেলে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত ইব্রাহীম আলী ওরফে জীবন চৌধুরী (৩৭) কে আটক করেছে পুলিশ। সে একই গ্রামের মৃত আব্দুল মজিদের ছেলে।

আহতরা হলেন, একই গ্রামের আইনুল হক, সাইদুল ইসলাম ও রতন।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সুত্রে জানা যায়, সদর উপজেলার ভানাই কুশলিয়া গ্রামের ইব্রাহীম হোসেন তার বাড়ির সামনের সরকারী রাস্তার কিছু অংশে অবৈধভাবে বেড়া দিয়ে রেখেছিল। সেই রাস্তায় বেড়া দেওয়াকে কেন্দ্র করে ওই রাস্তার সংস্কার কাজ চলায় প্রকল্পের লোকজন ও গ্রামবাসীর সাথে তার কথাকাটাটি হয়। তখন ইব্রাহীম ক্ষিপ্ত হয় সবার উপর। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৬ নভেম্বর চা দোকানী এনামুল সেই রাস্তা দিয়ে তার দোকানে যাচ্ছিল। এসময় ইব্রাহীম অতর্কিতভাবে ধারালো বটি দিয়ে এনামুলকে কোপাতে থাকে। তখন তার প্রতিবেশী ও বাড়ির লোকজন তাকে বাচাঁতে এলে ইব্রাহীম পর পর তাদেরও কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। তৎক্ষনাৎ এলাকাবাসীরা তাদের উদ্ধার করে জয়পুরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করায় এবং ইব্রাহীমকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। পরে তাদের অবস্থা আশংকা জনক হওয়ায় বগুড়ায় রেফার্ড করা হয়। তখন এনামুলের অবস্থা আরও আশংকাজনক হওয়ায় তাকে ঢাকায় স্থানান্তর করা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার (১০) ডিসেম্বর সে মারা যায়।

জয়পুরহাট সদর থানার অফিসার ইনচার্জ শাহরিয়ার খাঁন জানান, ইব্রাহীমকে আটক করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় সদর থানায় একটি মামলা হয়েছে।

উপরে