নাটোরে হজ্বে পাঠানোর কথা বলে প্রতারক চক্র তৎপর

নাটোরে হজ্বে পাঠানোর কথা বলে প্রতারক চক্র তৎপর

প্রকাশিত: ১০-১০-২০১৯, সময়: ১৮:২২ |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক, নাটোর : নাটোরে একটি প্রতারক চক্র সরকারী ভাবে হজ্বে পাঠানোর কথা বলে প্রতারনা শুরু করেছে। ওই চক্রটি ইসলামীক ফাউন্ডেশনের নাম ভাঙ্গিয়ে সরকারীভাবে হজ্বে পাঠানোর কথা বলে রেজিষ্ট্রেশনের জন্য বিকাশের মাধ্যমে টাকা চাইছে।

এই চক্রটি নাটোরের সিংড়া ও গুরুদাসপুর এলাকার বিভিন্ন মাদ্রাসার মুহতামীম সুপার এবং মসজিদের ইমাম ও মুয়াজ্জিনদের কাছে রেজিষ্ট্রেশনের জন্য টাকা চাচ্ছে। এতে করে এই চক্রের প্রতারনার শিকার হচ্ছেন কেউ কেউ। তবে জেলার ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালক মনিরুল ইসলাম বিকাশ প্রতারকদের ফাঁদে পা না দেওয়ার জন্য সর্তক থাকার অনুরোধ করেছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, ওই চক্রটি তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপির নাম ভাঙিয়ে সিংড়া উপজেলার মসজিদ মাদ্রাসার সুপার ও মসজিদের ইমাম ও মুয়াজ্জিনদের প্রতারনার শিকারে ফেলছে। বৃহস্পতিবার সিংড়া উপজেলার বিভিন্ন মাদ্রাসার মুহতামীম সুপার এবং মসজিদের ইমাম ও মুয়াজ্জিনদের কাছে ফোন দেয় ওই প্রতারক চক্র।

এই চক্রটি প্রতিমন্ত্রীর নাম ব্যবহার করে সরকারীভাবে হজ্বে পাঠানোর কথা বলে রেজিষ্ট্রেশনের জন্য বিকাশে টাকা দাবী করছে। এদিন দুপুরে সিংড়া উপজেলার বারইহাটি মাদ্রাসার সুপার নজরুল ইসলামের কাছে ফোন দেয় প্রতারক চক্র। চক্রটি প্রতিমন্ত্রীর নাম ব্যবহার করে তাকে ০১৪০৭৮৪২৬৫৩ এই নম্বর থেকে ফোন দেওয়া হয়। এসময় সরকারী ভাবে হজ্বে যাওয়ার জন্য রেজিষ্ট্রেশনের জন্য তার কাছে টাকা চাওয়া হয়।

বারইহাটি মাদ্রাসার সুপার নজরুল ইসলাম বলেন, একটি নম্বর থেকে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের পরিচালক পরিচয় দিয়ে প্রতারক চক্রটি বলেন, সরকারী ভাবে হজ্বে যাওয়ার জন্য প্রতিমন্ত্রী আপনার নাম সুপারশি করেছেন। আপনি হজ্বে যেতে চাইলে রেজিষ্ট্রেশনের জন্য উল্িেখত নম্বরে ৭হাজার টাকা বিকাশ করুন।

বিষয়টি সন্দেহজনক হলে তিনি প্রতিমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারী মাওলানা রুহুল আমীনের কাছে ফোন দেন। বিষয়টি জানার পর রুহুল আমীন প্রতারক চক্রটির ফাঁদে পা না দিতে তার ব্যক্তিগত ফেসবুক একাউন্ট থেকে একটি সচেতন মুলক বার্তা পোস্ট করেন।

রুহুল আমীন বলেন, সরকারি ভাবে হজ্বে পাঠানোর কথা বলে রেজিষ্ট্রেশনের জন্য টাকা চাওয়া হচ্ছে।এর কোনো ভিত্তি নাই। এবিষয়ে যে কোনো আর্থিক লেনদেন থেকে বিরত থাকার জন্য সকলকে আহবান জানানো হচ্ছে।

এদিকে সিংড়া উপজেলায় যে মোবাইল (০১৪০৭৮৪২৬৫৩) নম্বর থেকে বিভিন্ন ব্যক্তির কাছে ফোন দেওয়া হয় সে নম্বর থেকেই গুরুদাসপুরে স্থানীয় সংসদ সদস্য আব্দুল কুদ্দুসের ব্যক্তিগত সহকারী মুহাম্মদ ইব্রাহিমের পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন মাদ্রাসার মুহতামিমকে সরকারীভাবে হজ্বে পাঠানোর কথা বলে বিকাশের মাধ্যমে টাকা চাওয়া হয়। বিষয়টি অবগত হওয়ার পর সংসদ সদস্যের এপিএস মুহাম্মদ ইব্রাহিমও তার ব্যক্তিগত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি সচেতন মুলক বার্তা পোস্ট করেন। মুহাম্মদ ইব্রাহিম তার বার্তাতে উল্লেখ করেন, ০১৪০৭৮৪২৬৫৩ নাম্বারটি প্রতারক চক্রের। প্রতারিত না হওয়ার জন্য অনুরোধ করা হইলো।

নাটোর জেলা ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালক মনিরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, একটা প্রতারক চক্র এই কাজটি করছে। অতীতেও এ ধরনের কাজ তারা করেছে। চক্রটি মানুষের মধ্যে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করছে। আমরা এবিষয়ে সর্তক করে বরাবার বলে আসছি, কেউ এই চক্রের ফাঁদে পা দিবেন না। কেউ প্রতারনার শিকার হলে আমরা এর দায়-দায়িত্ব নিবনা। কারও কোন তথ্য জানার প্রয়োজন হলে ইসলামিক ফাউন্ডেশনে অফিসে সরাসরি যোগাযোগ করার জন্য বলা হয়েছে।

Leave a comment

উপরে