পদ্মায় দুই শিশুর লাশ

পদ্মায় দুই শিশুর লাশ

প্রকাশিত: ২২-০৭-২০১৯, সময়: ০০:০৭ |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক, পাবনা : ঈশ্বরদীর পদ্মা নদী থেকে একদিনে দুই লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রোববার দুপুরে উপজেলার লক্ষীকুন্ডা ইউনিয়নের বিলকেদার ঘাট থেকে হাত ও মুখে কসটেপ জড়ানো প্রায় ৮ বছর বয়সী শিশু এবং একই সময় সাঁড়া ইউনিয়নের মাজদিয়া ঘোষপাড়া গ্রামের শাজাহানের বাড়ির সামনে থেকে মস্তক বিহীন ক্ষত-বিক্ষত অর্ধগলিত মহিলার লাশ উদ্ধার করা হয়।

রোববার বিকেল সাড়ে ৪টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত দুই লাশের কোন পরিচয় পাওয়া যায়নি। তবে পুলিশ বলছে, পদ্মা নদীতে ব্যাপক পানি বৃদ্ধির কারণে তীব্র স্রোত হওয়ায় লাশ দুটি অন্যকোন জেলা থেকে ভেসে আসতে পারে।

সাঁড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এমদাদুল হক রানা সরদার বলেন, নদীতে মাছ ধরার সময় জেলেরা প্রথমে লাশটি পানিতে ভাসতে দেখে আমাকে খবর দেয়। খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে পুলিশকে জানিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করি।

লাশটি মস্তক বিহীন এবং ক্ষত-বিক্ষত অর্ধগলিত কোন এক মহিলার লাশ। পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে গেছে। ঘটনাস্থলে থাকা ঈশ্বরদী থানার এস আই শাহীন জানান, লাশটির সম্ভবত ময়না তদন্ত হওয়া। কোন কবর ভেঙ্গে পানিতে ভেসে এসেছে। বেশ কয়েকদিন পানিতে থাকায় শরীর থেকে মাথা বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।

এদিকে লক্ষীকুন্ডা ইউনিয়নের বিলকেদার গ্রামে পদ্মা নদী থেকে অজ্ঞাত এক শিশুর (৮) লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রোববার দুপুরে বিলকেদার গ্রামের পদ্মা নদীতে শিশুর লাশ ভেসে আসতে দেখে স্থানীয় বাসিন্দারা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। এ সময় উলঙ্গ শিশুর মুখ ও গলা টেপ দিয়ে পেচানো ছিল।

স্থানীয় বাসিন্দা মিনারুল ইসলাম জানান, বিলকেদার গ্রামের হামিদ মাঝির ঘাটে সকাল সাড়ে ১২টার দিকে এক শিশুর লাশ ভেসে উঠে। শিশুটির শরীরে কোন জামাকাপড় ছিল না। দেখে মনে হয়েছে মরদেহটি বেশ কয়েকদিনের। মাথা ও শরীরের বিভিন্ন অংশে পচন ধরেছে। লাশের মুখ ও গলায় টেপ পেচানো ছিল। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

লক্ষ্মীকুন্ডা ইউপি সদস্য জিয়াউর রহমান জিয়া জানান, নদীতে ভেসে উঠা শিশুর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ থানায় নিয়ে গেছে। এ লাশ কেউ শনাক্ত করতে পারেনি। আমার ধারনা নদীর স্রোতে মরদেহটি এখানে ভেসে এসেছে।

ঈশ্বরদী থানার ওসি বাহাউদ্দিন ফারুকী জানান, দুইটি লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। দু’টি লাশ লাশেই পচন ধরেছে। তাদের কোন পরিচয় পাওয়া যায়নি। ময়না তদন্ত শেষে সঠিক তথ্য জানা যাবে। তবে ওসি আরও জানান, পদ্মা নদীতে ব্যাপক পানি বৃদ্ধির কারণে তীব্র স্রোত হওয়ায় লাশ দুটি অন্যকোন জেলা থেকে ভেসে আসতে পারে।

উপরে