নাটোরে বিল না পেয়ে রাস্তা খুড়ে যান চলাচল বন্ধ করলো ইউপি সদস্য

নাটোরে বিল না পেয়ে রাস্তা খুড়ে যান চলাচল বন্ধ করলো ইউপি সদস্য

প্রকাশিত: ১২-০৬-২০১৯, সময়: ১২:২৭ |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক, নাটোর : নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলার পাকা ইউনিয়নের চকগোয়াশ এলাকায় ৬০ মিটার খানাখন্দে ভরা রাস্তার কাজ শেষ করেছেন ঠিকাদার। কর্তৃপক্ষ চুড়ান্ত পরিদর্শন না করা পর্যন্ত কাজের সমুদয় অর্থ মিলবেনা। কর্তৃপক্ষ সন্তুষ্ট হলেই মিলবে টাকা। কিন্তু চুড়ান্ত পরিদর্শনের আগেই শুরু হয়ে যায় যানবাহন চলাচল। ফলে সদ্য সংস্কার করা ওই রাস্তাটি ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। ফলে বিপাকে পড়েন ওই কাজের ঠিকাদার ও স্থানীয় ইউপি সদস্য বাদশা মিয়া।

পরিদর্শনে বিলম্ব হলেও রাস্তাটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে যেন বিল আটকে না যায় সেজন্য রাস্তার মাঝ বরাবর গর্ত করে যান চলাচলই বন্ধ করে দিয়েছেন কাজের ঠিকাদার ও স্থানীয় ৪নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য বাদশা মিয়া। মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর সংশ্লিষ্ট প্রকল্পের চারজন শ্রমিক লাগিয়ে সংস্কার করা ওই রাস্তা খুঁড়ে প্রায় ৩ ফুট গর্ত করেন তিনি। আর এতেই থেমে যায় যানবাহন চলাচল। একজন ইউপি সদস্যের এমন কান্ডের ছবি গড়িয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও। এ নিয়ে ওই এলাকায় সমালোচনার ঝড় উঠেছে। হঠাৎ রাস্তায় এমন গর্ত তৈরি হওয়ায় বিস্মিত হন অনেকেই। যানবাহন চলাচল না করায় এখন পায়ে হেঁটেই চলতে হচ্ছে এলাকাবাসীদের। ফলে চরম দুর্ভোগের শিকারে পড়ড়তে হচ্ছে এলাকাবাসী সহ কয়েক গ্রামের মানুষদের।

জানা যায়, সম্প্রতি এলজিএসপি প্রকল্পের আওতায় চকগোয়াশ কুলপাড়ায় ৬০ মিটার রাস্তার সংস্কার কাজ করেন ইউপি সদস্য বাদশা মিয়া। রাস্তার কাজ শেষ হলেও চুড়ান্ত পরিদর্শনের অপেক্ষায় রয়েছে রাস্তাটি। বিধি অনুযায়ী, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর কর্তৃপক্ষ চুড়ান্ত পরিদর্শন শেষ করে কাজ সন্তোষজনক ও সিডিউল মোতাবেক হয়েছে উল্লেখ করে রিপোর্ট দিলেই বিল উত্তোলন করতে পারবেন ওই ইউপি সদস্য। ইতিমধ্যে সংস্কারের পর পরই ওই রাস্তা দিয়ে মালামাল বহন কারী গাড়ীসহ ভারি যানবাহন চলাচল শুরু হলে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে রাস্তাটি। এমন পরিস্থিতিতে কর্তৃপক্ষ পরিদর্শনে এসে ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তা দেখে অসন্তুষ্ট হলে বিল উত্তোলন করতে পারবেন না এমন দাবী ওই ইউপি সদস্যের। আর এমন ধারনা থেকেই সংস্কার করা ওই রাস্তায় যান চলাচল বন্ধ করতে রাস্তা খুঁড়ে প্রায় তিন ফুট গভীর গর্ত করে প্রতিবন্ধক সৃষ্টি করেছেন ইউপি সদস্য বাদশা মিয়া।

ইউপি সদস্য বাদশা মিয়া এমন কান্ডের কথা অকপটে স্বীকার করেছেন। বিল পেতে রাস্তার ব্যবহার বন্ধ নিয়ে দুঃখ প্রকাশও করেন তিনি।

স্থানীয় ইউনিয়নের চেয়ারম্যন আমজাদ হোসেন এর সাথে সেলফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে রিসিভ না করায় তার সাথে যোগাযোগ করা যায়নি।

বাগাতিপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রিয়াংকা দেবী পাল বলেন, ঘটনাটি বিভিন্ন মাদ্যমে জেনেছেন। বিষয়টি খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে।

উপরে