আম উৎপাদনে চাঁপাইনবাবগঞ্জকে ছাড়িয়ে যাচ্ছে নওগাঁ

আম উৎপাদনে চাঁপাইনবাবগঞ্জকে ছাড়িয়ে যাচ্ছে নওগাঁ

প্রকাশিত: ১০-০৬-২০১৯, সময়: ১৬:৩৯ |
Share This

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : নওগাঁ জেলার পোরশা উপজেলার একটি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচিত সদস্য সালেহা বেগম বলছেন, গত পনের বছরে চাষাবাদের দিক থেকে পাল্টে গেছে তাদের এলাকা। তিনি বলেন, আগের চারদিকে শুধু ধানক্ষেত দেখা যেতো। ২০০২ সালের পর থেকে ধীরে ধীরে সব আমবাগান হয়ে যাচ্ছে। আমরা নিজেরা আগে রাজশাহী বা চাঁপাইনবাবগঞ্জের আম খুঁজতাম। এখন নওগাঁর আম কিনতে বহু মানুষ আসে আমাদের এলাকায়।

সালেহা বেগমের মতে, আমের মৌসুমে জমজমাট হয়ে উঠছে নওগাঁ কারণ ঢাকাসহ নানা জায়গা থেকে স্থানীয় বাজার ও আড়তে লোকজন আসে আম কেনার জন্য। ধানের চেয়ে বেশি লাভ আম চাষে।

তার কথার সাথে একমত সাপাহার উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নার্গিস সরকার। তিনি বলেন, এক মন ধানের দাম উঠে ৬/৭শ টাকা। সেখানে আম হাজারের নীচে নাই। মৌসুমে চার হাজার টাকা পর্যন্ত দাম ওঠে। তাই সবাই এখন আমের দিকেই ঝুঁকছে।

তিনি আরও বলেন, তার এলাকায় কম বেশি সব জায়গায় এখন আমের বাগান গড়ে উঠেছে। বাইরের মানুষ এসেও আম বাগান কিনে নিচ্ছে আর ফলনও হচ্ছে ব্যাপক।

জেলার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মনোজিত কুমার মল্লিক বলছেন জেলার সবজায়গাতেই আম চাষ বাড়ছে যদিও পোরশা ও সাপাহার উপজেলায় বেশি আম বাগান দেখা যাচ্ছে। এটি বরেন্দ্র এলাকা। এ এলাকায় পানির পরিমাণ কম আবার সেচ সুবিধাও নেই। তাই মাটির বৈশিষ্ট্যের কারণেই প্রচুর ফলন হয় আমের। জেলায় এখন বছর জুড়েই আমের চারা বিক্রি হয়। তবে এখানে ফলনের পরিমাণ চাঁপাইনবাবগঞ্জের চেয়ে কম হয় বলেই জানান তিনি।

নওগাঁয় নতুন নতুন বাগান হচ্ছে এবং ফলন বাড়ছে এটি সত্যি। কিন্তু মনে রাখতে হবে চাঁপাইতে একটি বড় গাছে যে পরিমাণ আম হয় নওগাঁয় একই ধরণের বড় গাছে সেই পরিমাণ আম হয়না। তবে নতুন মাটি ও নতুন নতুন গাছ হওয়ার কারণে দিন দিন ফলন বাড়ছে। তাছাড়া নওগাঁর গাছের আকার ছোটো।

অবশ্য তিনি বলেন যে গত কয়েকবছরে আম উৎপাদন এতো বেড়েছে যে অনেক আমের বাজার গড়ে উঠেছে এবং উপজেলা পর্যায়ে আড়তগুলো এখন জমজমাট। এখন নওগাঁর আম চাপাইতে নিয়ে সেখান থেকে অন্যত্র বাজারজাত করেন অনেকে। আবার চাপাই থেকে অনেকে এসে নওগাঁয় বাগান কিনছেন। তাদের অভিজ্ঞতা আছে এবং বিনিয়োগও করছেন। তাছাড়া আম চাষে নতুন নতুন কৌশলও আসছে বলে জানান তিনি, যা ফলন বাড়াতে ও কোনো ক্ষেত্রে গাছে দীর্ঘদিন আম রেখে মৌসুমের শেষে বেশি দামে বিক্রি করেন অনেকে ব্যবসায়ী।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে আঞ্চলিক উদ্যানতত্ত্ব গবেষণা কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড: শফিকুল ইসলাম বলছেন, দেশে যে পরিমাণ আম উৎপাদন হয় তার ২৫ ভাগ চাঁপাইনবাবগঞ্জে হয়। আম এখন সারাদেশে হচ্ছে। অন্তত তেইশটি জেলায় বাণিজ্যিক ভাবে আম উৎপাদন হচ্ছে বাগানে। বিশেষ করে নতুন এলাকা গুলোর মধ্যে নওগাঁ, সাতক্ষীরা, কুষ্টিয়া, রাঙ্গামাটিতে ভালো আম হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জে আম বাগান আছে প্রায় ২৯ হাজার হেক্টর জমিতে আর নওগাঁয় এখন এ ধরণের জমির পরিমাণ প্রায় আঠার হাজার হেক্টর। নওগাঁয় নতুন নতুন বাগান হচ্ছে এবং এক ফসলী জমি বেশি হওয়ার কারণে উঁচু জমিতে আমের বাগান বাড়ছে বলে জানান তিনি।

আম্র পালিসহ কয়েকটি জাতের আম নওগাঁয় খুবই ভালো হচ্ছে বলে জানিয়ে ইসলাম বলছেন, গত চাঁপাইনবাবগঞ্জে প্রায় ২ লাখ ৭৫ হাজার মেট্রিক টন আম উৎপাদিত হয়েছে এবং নওগাঁয় হয়েছে পৌনে দুই লাখ মেট্রিক টনের মতো। এটা ঠিক যে এবছর পর্যন্ত চাঁপাইনবাবগঞ্জেই বেশি আম হচ্ছে। কিন্তু নওগাঁয় দিন দিন বাড়ছে। সেখানে নতুন বাগান হওয়ার কারণে ফলনও বেশি হবে। আর অন্তত ৪৬ হাজার হেক্টর জমিতে সেখানে আম চাষ সম্ভব হবে। ফলে নওগাঁই আসলে দেশের সবচেয়ে বড় আমের বাজার হয়ে ওঠার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। সূত্র- বিবিসি বাংলা

Leave a comment

আরও খবর

  • দেশে প্রথম লোহার খনির সন্ধান
  • লিবিয়ায় জিম্মি রাজশাহীর ৪ যুবকের পরিবারে চরম উৎকণ্ঠা
  • দলীয় প্রার্থীর বিরোধিতাকারীদের তালিকা
  • পাবলিক পরীক্ষার সময়সহ বেশ কিছু পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত
  • মন্ত্রীসভায় আসছে রদবদল ও সম্প্রসারণ
  • রাজশাহীর একটি বালুমহাল নিয়ে বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়ানোর অভিযোগ
  • ইকোসকে বিপুল ভোটে জয় পেল বাংলাদেশ
  • ‘আমার গ্রাম আমার শহর’ বাস্তবায়নে ৬৬ হাজার কোটি টাকা
  • তিন কোটি যুবকের কর্মসংস্থান করা হবে : প্রধানমন্ত্রী
  • নাটোর কারখানায় আম পাল্পিং থেকে সরে আসছে প্রাণ এগ্রো!
  • পাঁচ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা
  • বাজেটে সবার জন্য পেনশন
  • বাজেটে যেসব পণ্য ও সেবার দাম বাড়বে
  • রাজশাহীতে ৩ খাতে বিনিয়োগে আগ্রহ ইন্দোনেশিয়ার
  • অর্থমন্ত্রী অসুস্থ, বাজেট পেশ করেন প্রধানমন্ত্রী



  • উপরে