ঈশ্বরদীতে মুক্তিযোদ্ধা হত্যায় যুবলীগ কর্মী অস্ত্রসহ আটক

ঈশ্বরদীতে মুক্তিযোদ্ধা হত্যায় যুবলীগ কর্মী অস্ত্রসহ আটক

প্রকাশিত: ১১-০২-২০১৯, সময়: ১৫:৩২ |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক, পাবনা : পাবনার ঈশ্বরদীতে মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক আওয়ামীলীগ নেতা মোস্তাফিজুর রহমান সেলিম গুলি করে হত্যায় জড়িত সন্দেহে যুবলীগ কর্মী আব্দুল্লাহ আল বাকী আরজু (৪৮) কে অস্ত্র-গুলিসহ আটক করেছে পুলিশ। সে উপজেলার চররুপপুর দক্ষিণপাড়া গ্রামের মৃত ইমদাদুল হক বিশ্বাসের ছেলে এবং পাকশী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এনামুল হক বিশ্বাসের ভাতিজা।

সোমবার (১১ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে ঈশ্বরদী থানায় আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান পুলিশ সুপার শেখ রফিকুল ইসলাম। তিনি জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রোববার (১০ ফেব্রুয়ারি) রাতে পাবনা সদর উপজেলার হেমায়েতপুর এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। এ সময় তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী বাড়ি থেকে একটি বিদেশী পিস্তল, দুই রাউন্ড তাজা গুলি ভর্তি একটি ম্যাগজিন উদ্ধার করা হয়।

পুলিশের দাবি, আটকের পর পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে যুবলীগ কর্মী আরজু স্বীকার করেছে যে, মুক্তিযোদ্ধা সেলিম হত্যার পরিকল্পনাকারী ছিল সে এবং নিজেই গুলি করেছিল বলে স্বীকার করেছে । সেইসাথে হত্যাকান্ডের আরো গুরুত্বপুর্ন তথ্য দিয়েছে, যা তদন্তের স্বার্থে গোপন রাখা হয়েছে বলেও জানায় পুলিশ। আটক আরজু কে মুক্তিযোদ্ধা সেলিম হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হবে।

সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার ছাড়াও অতিরিক্ত সহকারি পুলিশ সুপার (ঈশ্বরদী সার্কেল) জহুরুল হক, ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বাহাউদ্দিন ফারুকী উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, ৬ ফেব্রুয়ারি রাতে পাবনার রুপপুরে নিজ বাড়ির সামনে পাকশী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও মুক্তিযোদ্ধা মোস্তাফিজুর রহমান সেলিমকে গুলি করে হত্যা করা হয়। পরদিন ৭ ফেব্রুয়ারি রাতে নিহতের ছেলে তানভীর রহমান তন্ময় বাদি হয়ে অজ্ঞাতনামাদের আসামী করে মামলা করেন।




উপরে