গোদাগাড়ীতে বেড়েছে পেঁয়াজের আবাদ

গোদাগাড়ীতে বেড়েছে পেঁয়াজের আবাদ

প্রকাশিত: ০৯-০১-২০২০, সময়: ১৭:২৯ |
খবর > কৃষি
Share This

এম. আব্দুল বাতেন, গোদাগাড়ী : প্রায় দুই মাস ধরে সারাদেশে পেঁয়াজের মূল্য ঊর্ধ্বগতিতে। এতে দিশেহারা সাধারণ মানুষ। ঠিক এমন সময়ে রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার কৃষকরা পেঁয়াজ আবাদের দিকে ঝুঁকেছেন। কিন্তু দ্বিগুণ দামে কিনতে হচ্ছে পেঁয়াজের চারা।

কৃষকরা বলছেন, পেঁয়াজের দাম বেশি থাকায় এবার অনেকেই পেঁয়াজ চাষে আগ্রহী হচ্ছেন তাই দাম বেশি। আর উপজেলা কৃষক অফিসাররা বলছেন, প্রতিটি মানুষ বাড়ির আশেপাশে নিজেদের খাবারের জন্য পেঁয়াজ চাষে আগ্রহী ফলে পেঁয়াজের আবাদ বেড়ে গেছে তাই পেঁয়াজের চারারও দাম বেশি হচ্ছে। আর পেঁয়াজ চাষে ঠান্ডায় বিভিন্ন রকম রোগ-বালাই ঠেকাতে কাজ করছে কৃষি সম্প্রসারণ অফিসের কর্মকর্তারা।

প্রমত্তা পদ্মার চরে জেগে উঠা বালির চরে কৃষকরা চাষ করেছেন পেঁয়াজের চারা। এই চারা প্রতিবার চাষ করলেও তেমন লাভের মুখ দেখেন না কৃষকরা। তবে এবার মোটা অংকের লাভের আশায় এই চারা সকাল হতে বিকেল পর্যন্ত জমি থেকে উঠাতে থাকেন পরে তা হাটে কিংবা জমি হতেই বিক্রয় করছেন।

লোহাবরিয়া এলাকার কৃষক নাসির জানান, অন্যান্য বার পেঁয়াজের চারা ৮০০-৯০০ টাকা মণ বিক্রি করেছি। এবার পেঁয়াজ চাষে আগ্রহী হচ্ছেন বেশির ভাগ কৃষক। তাই এর দাম দ্বিগুণ হয়ে ১৫০০-১৬০০ টাকা হয়েছে।

মাদারপুর গ্রামের কৃষক জমসেদ জানান, এবার পাঁচ বিঘা জমিতে পেঁয়াজের চারা রোপণ করেছি তাতে তিন লাখ টাকা খরচ হয়েছে। অন্যান্য বছর তেমন লাভ করতে পারিনি। তবে এবার দাম থাকায় খরচ বাদে প্রায় পাঁচ লাখ টাকা লাভ করতে পারবো বলে আশা করছি।

পৌর এলাকার পেঁয়াজ চাষি তৌহিদুল জানান, গত বছর পেঁয়াজের চারা ৭০০-৮০০ টাকা দরে এক মণ ক্রয় করেছি এবার তা ১৭০০-১৮০০ টাকা হয়ে গেছে। এবার পেঁয়াজের আবাদ বেশি হওয়ায় এর দাম বেড়েছে। শীতে পেঁয়াজের গোড়া পঁচা রোগ দেখা দেয়। তবে মাঠপর্যায়ের কৃষি অফিসাররা তাদের সঠিক পরামর্শ ও তদারকি করায় তেমন অসুবিধা হচ্ছে না।

গোদাগাড়ী পৌরসভা ব্লকের কৃষি উপ-সহকারী কর্মকর্তা মোস্তফা কামাল জানান, এবার পেঁয়াজের আবাদ বেশি হয়েছে। পেঁয়াজের তেমন রোগ-বালাই হয় না। আমরা কৃষকদের পরামর্শ মাঠে মাঠে যাচ্ছি সেই সঙ্গে কোনো কৃষক মোবাইলে পরামর্শ চাইলে তা জানাচ্ছি।

গোদাগাড়ী উপজেলা অতিরিক্ত কৃষি অফিসার লুৎফুন নাহার জানান, গত বছর উপজেলায় ৮৬০ হেক্টর জমিতে পেঁয়াজের আবাদ হয়েছিল এবার সেই তুলনায় প্রায় ১০০ হেক্টর বা তার বেশি আবাদ বেড়ে যাবে। শীতে পেঁয়াজের রোগ-বালাই তেমন নেই তবে পূর্ব সতর্কতার জন্য আমাদের মাঠপর্যায়ের কৃষি কর্মকর্তারা সঠিকভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

Leave a comment

উপরে