পোরশায় আমন ধান কাটা শুরু

পোরশায় আমন ধান কাটা শুরু

প্রকাশিত: 16-11-2019, সময়: 13:21 |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক, পোরশা : চলতি আমন মৌসুমে নওগাঁর পোরশায় উৎসাহ নিয়ে আমন ধান কাটার কাজ শুরু করেছেন কৃষকরা। উপজেলার বিভিন্ন মাঠ ঘুরে দেখা গেছে কৃষকরা তাদের চাষাবাদকৃত ধান কাটা নিয়ে ব্যাস্ত। উৎসাহ নিয়ে কাটা-মাড়াইয়ের কাজ শুরু করলেও বাদ সেধেছে বাজারে ধানের দাম। বর্তমান বাজারে ধানের দাম কেমন হবে তা নিয়ে কৃষকদের মনে হতাশা ও সংশয় দেখা দিয়েছে। এবারে বর্ষা মৌসুমে সঠিক সময়ে বৃষ্টি হওয়ায় ধানের ফলন ভাল হবে বলে তাদের মধ্যে কিছুটা আশার সঞ্চার দেখা দিয়েছে। এজন্য ধানের কাঙ্খিত উৎপাদন ভাল হবে বলে তারা ধারনা করছেন। আমন পাকার সময়ে কিছু জমিতে পোকামাকড়ের আক্রমন হলেও এবারে ধানের ফলন ভাল হবে বলে কৃষকরা মনে করছেন। গত বছরের তুলনায় বিঘাপ্রতি ৫-৬ মন ধান বেশী হবে বলে কৃষকরা বলছেন।

জালুয়া গ্রামের কৃষক জসিম উদ্দিন, বারিন্দার হুমায়ন কবির ও পাঁচড়াইয়ের গ্রামের মাহফুজুর রহমান বকুল জানান, ধান উৎপাদন খরচ একটু বেশী হয়েছে। বাজারে ধানের দাম যদি মন প্রতি ৫’শ থেকে ৬’শ টাকা হয় তাহলে তাদের উৎপাদন খরচ উঠলেও লাভ হবে না। এছাড়াও মাঠ থেকে ধান কাঁটা ও মাড়াই এর জন্য শ্রমিকদের গত বছরের তুলনায় এবারে বিঘাপ্রতি ৩-৪ মণ ধান বেশী দিতে হবে। এসব খরচ বাদ দিলে দেখা যাবে কোন লাভ থাকবে না।

তারা আরও জানান, ধার-দেনা করে ও বাজার থেকে বাঁকীতে কীটনাশক নিয়ে জমিতে প্রয়োগ করা হয়েছে। আর ধান বিক্রি করে দেনা শোধ করার কথা। কিন্তু বাজারে ধানের আশানুরূপ দাম না পাওয়া গেলে দেনা পরিশোধ তো দুরের কথা তাদের সংসার পরিচালনা করা কঠিন হয়ে যাবে বলে তারা বলছেন। এজন্য এ মৌসুমে কৃষকরা ধানের ন্যায্য মূল্য পাওয়ার জন্য সরকারের প্রতি জোর দাবি জানিয়েছেন।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাহফুজ আলম জানান, এবারে উপজেলায় ১৬হাজার ৮৭০হেক্টর জমিতে আমন লাগানো হয়েছিল। এক্ষত্রে উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল বিঘা প্রতি গড়ে ১৮মন। কিন্তু বন্যায় ১১৮ হেক্টর জমিতে ধান উৎপাদন হয়নি। তারপরেও ধানের উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে বলে তিনি আশা করছেন। আর ধানের দামের ব্যাপারে তিনি কয়েকটি হাটে খোঁজ নিয়েছেন এবং বাজার গুলিতে ধানের দাম ভাল রয়েছে। তবে কৃষকরা ধানের দাম ভাল পাবেন বলে তিনি আশা করছেন। এব্যাপারে সংশয়ের কিছু নেই বলে তিনি জানান।

Leave a comment

উপরে