সঠিক পরিচর্যার অভাবে বাড়ছে না প্রায় দেড় সহস্রাধিক খেজুরগাছ

সঠিক পরিচর্যার অভাবে বাড়ছে না প্রায় দেড় সহস্রাধিক খেজুরগাছ

প্রকাশিত: ২৭-০৬-২০১৯, সময়: ১৪:৩৩ |
খবর > কৃষি
Share This

নাজমুল হক নাহিদ, আত্রাই : নওগাঁর আত্রাইয়ে প্রয়োজনীয় সঠিক পরিচর্যার অভাবে বেড়ে উঠতে পারছে না প্রায় দেড় সহস্রাধিক খেজুরগাছ। উপজেলার মনিয়ারী ইউনিয়নের বিভিন্ন রাস্তায় রোপিত এসব খেজুর গাছ ঝোপ জঙ্গলের কবলে পড়ে বেড়ে উঠতে না পারায় এসব গাছ থেকে এলাকাবসীও কোন সুফল ভোগ করতে পারছে না। উপরন্ত এসব রাস্তা রাতের আঁধারে নিরাপত্তাহীন হয়ে পড়ছে।

জানা যায়, উপজেলার মনিয়ারী ইউনিয়নের মাড়িয়া- নওদুলী, মাড়িয়া- জালুপৌঁতা ও নওদুলী- গুলিয়া রাস্তায় প্রায় দেড় সহস্রাধিক খেজুরগাছের বীজ বোপন করা হয় ৮/৯ বছর পূর্বে। আত্রাই পূর্ণিমা পল্লী উন্নয়ন সংস্থা নামের একটি স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান এলাকাবাসীর উপকারার্থে নিজস্ব অর্থায়নে ওই রাস্তাগুলোর পার্শে ২ হাজার খেজুরের বিচি বোপন করে। পরে গাছ উঠার পর প্রয়োজনীয় রক্ষাণাবেক্ষণের অভাবে অনেক গাছই বিনষ্ট হয়ে যায়। তারপরও বর্তমানে রাস্তাগুলোর পার্শে রয়েছে প্রায় দেড় সহস্রাধিক খেজুরগাছ। গাছগুলো অনেকটা দর্শনীয় হয়ে উঠেছে। কিন্তু সঠিক পরিচর্যার অভাবে এগুলো বেড়ে উঠতে পারছে না। এ গাছগুলোর সঠিক পরিচর্যা করলে শীত মৌসুমে এলাকাবাসী প্রচুর পরিমাণ রস সংগ্রহ করে আর্থিকভাবে লাভবান হতে পারবে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।

পূর্ণিমা পল্লী উন্নয়ন সংস্থার পরিচালক এসএম হাসান সেন্টু বলেন, ২০০৯ সালের দিকে আমরা ওই রাস্তাগুলোতে খেজেুরের বীজ বোপন করি। কয়েক বছরের মধ্যেই গাছগুলো রস দানের উপযোগী হয়ে উঠে। কিন্তু অর্থাভাবে এ গাছগুলোর প্রয়োজনীয় পরিচর্যা করতে না পারায় ওই গাছগুলো থেকে রস সংগ্রহ করতে না পারায় এলাকাবাসী এর সুফল থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। সরকারী সহায়তা পেলে আমরা গাছগুলোর নিয়মিত পরিচর্যা করতে পারতাম। এতে করে এলাকাবাসী অনেক উপকৃত হতো। এ ব্যাপারে আত্রাই উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ এবাদুর রহমান বলেন, আমি রাস্তার গাছগুলো দেখেছি। বৃহত্তর স্বার্থে এ গাছগুলোর পরিচর্যা বিশেষ প্রয়োজন। বিষয়টি উপজেলার সমন্বয় কমিটির সভায় আলোচনার মাধ্যমে বন বিভাগকে দায়িত্ব দিয়ে গাছগুলো পরিচর্যার ব্যবস্থা গ্রহনের চেষ্টা করছি।

উপরে